কুখ্যাত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী অনিক গ্রেফতার

সংবাদটি শেয়ার করুন:

আব্দুল্লাহ আল মামুন, বিশেষ প্রতিনিধি:  রাজধানীর কদমতলী থানায় ২ টি হত্যা মামলা, ১ টি হত্যার চেষ্টা ও ১ টি চাঁদাবাজি মামলার আসামী কদমতলী থানা এলাকার কুখ্যাত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী মো. অনিক হোসেনকে (৩২) গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১০। গতকাল সোমবার রাতে পূর্ব জুরাইনের কমিশনার রোড এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে ১ টি ওয়ান শ্যুটার গান, ২ রাউন্ড গুলি ও ১৪৮ পিস ইয়াবা (মাদক) ট্যাবলেট উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১০ এর আভিযানিক দল। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক এ্যাডিশনাল ডিআইজি মাহ্ফুজুর রহমান।
তিনি জানান, ‘রাজধানীর কদমতলী থানাধীন পূর্ব জুরাইনে কমিশনার রোড এলাকায় কতিপয় দুষ্কৃতিকারী সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালানোর উদ্দেশ্যে অস্ত্রসহ অবস্থান করছে।’ সোমবার (১২ জুলাই) এমন একটি গোপন সংবাদ প্রাপ্তির পর র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল ঐ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে অভিযানে নেমে পড়ে। রাত আনুমানিক ২’টার দিকে ১ টি ওয়ান শ্যুটার গান, ২ রাউন্ড গুলি ও উল্লেখিত মাদকসহ কুখ্যাত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী মো. অনিক হোসেনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় র‌্যাবের আভিযানিক দল। এ সময় তার অপর সহযোগীরা কৌশলে পালিয়ে যায়। পলাতক আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে জানান এ্যাডিশনাল ডিআইজি মাহ্ফুজুর রহমান।
র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদ ও প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায় যে, মো. অনিক হোসেন রাজধানীর কদমতলী থানা এলাকার এক কুখ্যাত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীর নাম। তার নামে কদমতলী থানায় ২ টি হত্যা মামলা, ১ টি হত্যার চেষ্টা ও ১ টি চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে। সে কদমতলী থানা এলাকায় দীর্ঘদিন যাবত সন্ত্রাস ও মাদকের রাজত্ব কায়েম করে আসছিল। অনিক ও তার সহযোগীরা বিভিন্ন সময় কদমতলী থানা এলাকাসহ আশেপাশের এলাকায় ভ্রাম্যমান ব্যবসায়ী (ফেরিওয়াল) ও স্থানীয় ব্যবসায়ীদের নিকট থেকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায় করে আসছিল।
অনুসন্ধানে আরো জানা যায় যে, উজ্জল হোসেন (৩০) নামের একজন ফেরিওয়ালা তাদের এলাকায় ফেরি করে পণ্য বিক্রি করার জন্য ঐ ফেরিওয়ালার নিকট এককালীন ৭০ হাজার টাকা এবং প্রতি মাসে ১০ হাজার টাকা করে চাঁদা দাবী করে অনিক ও তার সহযোগীরা। এই চাঁদা না দিলে তার প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে তারা। এতে ঐ ফেরিওয়ালার বাবা মো. রফিকুল ইসলাম ছেলের নিরাপত্তার কথা ভেবে গত জুন মাসের ২০ তারিখ, নিজের ভ্যান-গাড়ি বিক্রি করে সন্ত্রাসী অনিক ও তার সহযোগীদের ১০ হাজার টাকা দেয়। অতঃপর গত ৬ জুলাই অনিক ও তার সহযোগীরা ঐ ফেরিওয়ালার নিকট আবারো চাঁদা দাবী করলে ফেরিওয়ালা পুনরায় চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে। এতে অনিক ও তার সহযোগীরা ফেরিওয়ালার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে সেদিনই অস্ত্র-শস্ত্রসহ তাকে বাসা থেকে উঠিয়ে নিয়ে গিয়ে তার চোখ বেঁধে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে রক্তাত্ব জখম করে। শুধু তাই নয়, এ সময় তারা তাদের পোষা কুকুর লেলিয়ে দেয় ফেরিওয়ালার উপর। কুকুরের কামড়ে ফেরিওয়ালার শরীরের বিভিন্ন অংশে মারাত্মকভাবে জখম হয় বলে জানা যায়।
গ্রেফতারকৃত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী মো. অনিক হোসেনের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় নিয়মিত মামলা রুজুর বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান র‌্যাবের দায়িত্বশীল ঐ কর্মকর্তা।

 


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *