সিদ্ধিরগঞ্জে র‌্যাব কতৃক ৫ চাঁদাবাজ গ্রেফতার মামলাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিতের চেষ্টায় লিপ্ত

সংবাদটি শেয়ার করুন:

স্বাধীন বাংলাদেশ রিপোর্ট:
সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজী নগরে অবস্থিত র‌্যাব-১১’র সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার আতিকুর রহমান অভিযান চালিয়ে চাঁদাবাজ চক্রের ৫সদস্যকে গ্রেফতার করে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে থানার আদমজী ইপিজেড মেইন গেইটের সামনে থেকে ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান থামিয়ে চাঁদা আদায়ের চেষ্টাকালে চাঁদাবাজদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের নাম হলো: হৃদয় মিয়া (২৫), বাবু (৩০), নূর হোসেন (২৩), মো: হাসান (২১), রাসেল (৩০)। গ্রেফতারকৃতদের স্বীকারোক্তি মতে পলাতক ৭জনের নাম হলো: আল আমিন (২৫), মহিন (২৪), আরিফুল ইসলাম (২৫), জীবন (২৫), রাফি (২৪), হৃদয় (২৬) ও রবিউল আলম (২৬)। এ ঘটনায় র‌্যাব বাদী হয়ে ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজী মামলা দায়ের পূর্বক সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় হস্থান্তর করে। এদিকে র‌্যাবের দায়ের করা ৫চাঁদাবাজ গ্রেফতারের মামলাটি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা এলাকার বাংলা তেল চক্রের মাফিয়ার নিয়ন্ত্রিত কতিপয় সাংবাদিক। তারা র‌্যাবের মামলাটি যাচাই না করে নিজেদের মনমতো তথ্য দিয়ে মাফিয়া চক্র থেকে সুবিধা নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে দিয়েছে বলে ভালো সাংবাদিকদের থেকে জানা গেছে। মাফিয়া চক্রের নিয়ন্ত্রিত কতিপয় সাংবাদিক তাদের প্রচারিত সংবাদে উল্লেখ করে সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজী ইপিজেডে আধিপত্য বিস্তার ও দেশীয় অস্ত্রের মহড়া দিয়ে চাঁদা আদায়ের সময় নাসিক ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতির শেল্টারে বেপরোয়া হয়ে উঠা পানি আক্তার ও আশরাফ উদ্দিন বাহিনীর ৫ চাঁদাবাজকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১১। অথচ র‌্যাবের মামলায় কোথাও আলহাজ্ব মতি ও আশরাফের বাহিনীর কথা উল্লেখ নেই। মামলায় অস্ত্রের মহড়ার কথাও উল্লেখ নেই, উল্লেখ নেই পানি আক্তারের কথা। এভাবে সিদ্ধিরগঞ্জে ৬নং ওয়ার্ডে কিছু হলেই মাফিয়া নিয়ন্ত্রত কয়েকজন সংবাদ কর্মী কাল্পনিক গল্প কথা সাজিয়ে কখনো মতিকে আবার কখনো আশরাফকে হেয় করে সংবাদ প্রচার করে সামাজিক সুনাম ক্ষুন্ন করার পায়তারা করছে। যেমনটি গতকাল ২৯জুন ইপিজেডের সামনে থেকে চাদাবাজ গ্রেফতারে র‌্যাবের মামলাটি ভিন্ন খাতে প্রবাতিহ করার চেষ্টা করছে মাফিয়া চক্রের নিয়ন্ত্রিক সংবাদকর্মীরা। আর এই কথার সত্যতা পাওয়া যায় র‌্যাবের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: জসিম উদ্দিন চৌধুরীর বক্তব্য থেকে। তিনি জানান, একটি চাঁদাবাজ সিন্ডিকেট ইপিজেডে যাতায়াতকারী বিভিন্ন পণ্য পরিবহন ও ব্যবসায়ীদেরকে জিম্মি করে চাঁদাবাজী করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল মঙ্গলবার সকালে একটি চাঁদাবাজ বাহিনী ইপিজেডের গেইটের সামনে অবস্থান নিয়ে চাঁদাবাজি করার সময় ৫ জনকে আটক করা হয়েছে।
অন্যরা পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে সত্যতা স্বীকার করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত সাইফুল ইসলাম জানান, চাঁদাবাজির মামলা করে র‌্যাব ৫ জনকে থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। তারা সবাই মামলার এজাহার নামীয় আসামি। তাই কতিপয় সাংবাদিকের মিথ্যে সংবাদের ব্যাপারে বলতে গিয়ে ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়ন নেতা দৈনিক স্বাধীন বাংলা পত্রিকার প্রকাশক আশরাফ উদ্দিন বলেন, সাংবাদিক সমাজের দর্পন। জাতির বিবেক। তাদের কাছে মানুষের প্রত্যাশা থাকে অনেক। তাই মিথ্যে তথ্যের ফলে যে কেহ বিভ্রান্ত হয়ে পড়বে। এতে সামাজিক সুনাম নষ্ট হয়ে গেলে পরে হাজার বার সত্য প্রকাশ করেও সে সুনাম আর ফিরিয়ে আনা যায়না। তাই সংবাদ প্রকাশের ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের আরো সচেতন ও পারদর্শী হতে হবে। আমি নিজে একটি পত্রিকায় জড়িত। আমি চেষ্টা করি সত্য প্রকাশ ও প্রচার করতে। আমার বিরোধী লোক থাকতে পারে। তাদের অপকর্ম আমি প্রকাশ করি তাতে তা প্রশাসনের থেকে প্রাপ্ত ও অনুসন্ধানের ভিত্তিতে। তা না হলে যে শক্তিশালী চক্রটির বিরুদ্ধে আমাদের কলম যুদ্ধ চলে তা যদি সত্য না হয় তাহলে বড় ধরনের ক্ষতির আশংকা থাকে। ঠিক তেমনি আমি সকল সাংবাদিকদের বলবো র‌্যাবের মামলায় কোথাও আলহাজ্ব মতিও আমার সম্পৃক্ততা নেই, তারপরও কেন আমাদের সংবাদে টানা হলো, এটা কি সাংবাদিকতার মধ্যে পড়ে। আমি অপসাংবাদিকতাকে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। যদি আমার নামে সত্যি কোন অপরাধ পান প্রকাশ করেন। আমি তার সত্যি ব্যাখ্যা দিতে চেষ্টা করবো। কখনো মিথ্যার আশ্রয় নিবো না এ আশ্বার জাতির বিবেক আমার সাংবাদিক ভাইদেরকে দিলাম।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *