সিদ্ধিরগঞ্জ কাঁচপুর ল্যান্ডিং ষ্টেশনে যাত্রীর পরিবর্তে গম আনলোড হচ্ছে

সংবাদটি শেয়ার করুন:

স্বাধীন বাংলাদেশ রিপোর্ট:
সিদ্ধিরগঞ্জ শীতালক্ষ্যা নদীর পশ্চিম পাড়ে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কৃর্তপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) এর কাঁচপুর ল্যান্ডিং ষ্টেশন এখন গম আনলোডে নির্ভরশীল হয়ে উঠেছে। জানা যায়, ঢাকা শহরের চারদিকে বৃত্তাকার নৌ পথ চালু করণের (২য় পর্যায়) প্রকল্পের আওতাধীন এ ল্যান্ডিং ষ্টেশন বিভিন্ন নৌযানের পণ্য লোড আনলোডের ও যাত্রী বাহী নৌযানের যাত্রীরা উঠা নামা করতে পারবে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কাচঁপুর ল্যান্ডিং ষ্টেশন এর নিকট কয়েকটি জাহাজ লাগানো রয়েছে। গতকাল শনিবার ১৯ ই জুন দুপুরে শ্রমিকদের জাহাজ থেকে গমের বস্তা আনলোড করতে দেখা যায় না। শ্রমিকদের সর্দার শাহিন জানান, কাচঁপুর ল্যান্ডিং ষ্টেশন শুধু গম আনলোডের মাধ্যমে চলে। এখানে অনেক শ্রমিক প্রতিদিন কাজ করে কয়েক হাজার গমের বস্তা ল্যান্ডিং দিয়ে জাহাজ থেকে কয়েক শত ট্রাক আনলোড করে। গমের ট্রাক গুলো সিদ্ধিরগঞ্জে কয়েকটি গোডাউনে মজুদ করে এবং সেখানে থেকে বিভিন্ন জায়গায় পাঠানো হয়।
কাচঁপুর ল্যান্ডিং ষ্টেশন এর ম্যানাজার আলফাজ উদ্দিন বলেন, গতকয়েকদিন ধরে বৃষ্টির কারণে এম ভি.তাসনিয়া-১ ,গ্লোরী অব শ্রী নগর-৫ ও এম ভি গোলডেন রুবি জাহাজ গুলো ভিড়ানো রয়েছে এগুলো সব গমের জাহাজ। চট্টগ্রাম থেকে এসব জাহাজ আসে প্রায় ১৭ শত টন গম নিয়ে কাচঁপুর ল্যান্ডিং ষ্টেশন পৌছে। জাহাজের ১৭ শত টন গম ৬০ থেকে ৭০ টি ট্রাক আনলোড করতে হয় । বৃষ্টির কারণে শ্রমিকরা আনলোড করতে পারছেনা। বৃষ্টিতে গম ভিজে গেলে গম নষ্ট হয়ে যায়। এজন্য শ্রমিকরা কাজ না থাকায় ল্যান্ডিং ষ্টেশনে শ্রমিক ও জাহাজ অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এ দিকে কাচঁপুর ল্যান্ডিং ষ্টেশন এর ইজারাদার বিটু জানান, আমাদের এ ষ্টেশনে শ্রমিকরা বসে থাকলে ও জাহাজ থেকে গম আনলোড না করলে প্রতিদিনই আমাদের বিরাট ধরণের ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়।প্রতিটি জাহাজে ১৭ থেকে ১৮ শত টন গম নিয়ে বসে থাকলে কিভাবে এগুলো একসাথে আনলোড করবে শ্রমিকরা ।এক এক করে ট্রাক আনলোড করতে হয়।একটি জাহাজের গম আনলোড করতে প্রায় ৭০টি ট্রাক লাগে। বৃষ্টি হওয়াতে ল্যান্ডিং ষ্টেশনে যানঝট লেগে রয়েছে।##


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *