মেয়রের আহবানে কাজ বন্ধ

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্বাধীন বাংলাদেশ রিপোর্ট:
নারায়ণগঞ্জ টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ (ভোকেশনাল) খেলার মাঠ রক্ষার দাবীতে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে এলাকাবাসী। গতকাল মঙ্গলবার (৮ জুন) দুপুরে নগর ভবনে মেয়রের কার্যালয়ে এ স্মারকলিপি দেন তারা।
এসময় মেয়র সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে ভবন নির্মাণ এবং মাঠও যেন রক্ষা করা যায় এই বিষয়ে কথা বলবেন বলে আন্দোলনকারীদের আশ্বস্ত করেন। এবং সরেজমিনে মাঠটি দেখতে একটি প্রতিনিধি দল পাঠাবেন বলে জানান।
স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, বর্তমান সরকার টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজগুলোকে অত্যাধুনিক করার লক্ষ্যে দেশের ৬৪ টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজে ৫ তলা একাডেমি-কাম-ওয়ার্কসপ ভবন নির্মান প্রকল্প কাজ হাতে নেয়। তারই ধারাবাহিকতায় সিদ্ধিরগঞ্জের পাঠানটুলী এলাকার নারায়নগঞ্জ টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ (ভোকেশনাল) এর উন্মুক্ত খোলা মাঠর মধ্যে ভবনের কাজ করতে গেলে অভিবাবক ও স্থানীয় এলাকাবাসীর নজরে পরে। তাদের সকলের দাবি কর্তৃপক্ষের এ আত্নঘাতী সিদ্ধান্ত পরির্বতন করে প্রতিষ্ঠানটির উত্তর-পশ্চিম দিকে ছাত্রাবাসের দিকে যে জায়গা পড়ে আছে সেখানে এই ভবনটি স্থাপন করা হোক।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল আমিন এবং মাঠ রক্ষার দাবিতে আন্দোলনকারীদের পক্ষে মুখপাত্র গোলাম মোস্তফা সাচ্, রূপালী তারার মেলার কেন্দ্রীয় সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম গোলক, বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি ও জেলা সভাপতি জেসমিন আক্তার ও মাঠ রক্ষার সংগঠক মো. আবু সাঈদ প্রমুখ।
এদিকে স্থানীয় কাউন্সিলর রুহুল আমিনের নেতৃত্বে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের একটি প্রতিনিধি দল সরেজমিনে সার্বিক পরিস্থিতি দেখতে নারায়ণগঞ্জ টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ (ভোকেশনাল) এ যান। তারা এসময় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে ভবন নির্মাণের কাজটি আপাতত বন্ধ রাখতে অনুরোধ করেন।
এবিষয়ে কাউন্সিলর রুহুল আমিন বলেন, টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজটি যেহেতু সিটি কর্পোরেশন এলাকায় পরেছে এবং স্থানীয় এলাকাবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে মাঠ রক্ষায় মেয়রের আহবানে আপাতত ভবন নির্মাণের কাজ বন্ধ। আগামী রবিবার কাগজপত্র দেখে এই বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানা যাবে।
পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন, এলাকার পঞ্চায়েত প্রধান ইসমাঈল মাদবর, সাবেক জাতীয় ফুটবল দলের খেলোয়াড় ও সোনালী অতীতের সভাপতি মোতালেব হোসেন, মো. ইভান, মেহেদী হাসান সজল, ইসমাঈল হোসনে তারিফ, আমিনুল ইসলাম রকি, নাছির আহমেদ পাবেন, সাব্বির আহমেদ সোহান, জাহিদ হাসান, রাকিবুল হাসান, মহিম, আবদুর রহমান সিফাত প্রমুখ।


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *