নাসিকের সাহসী কাউন্সিলর রুহুল আমীন মোল্লা

সংবাদটি শেয়ার করুন:

স্বাধীন বাংলাদেশ রিপোর্ট:
নাসিকের সাহসী কাউন্সিলর রুহুল আমীন মোল্লা। গত ২দিন ধরে এই কথাই নাসিক ৮নং ওয়ার্ড এলাকাবাসীর মুখে মুখে। সামনে নাসিক নির্বাচন। নির্বাচন নিয়ে যেখানে নাসিকের কাউন্সিলরগন তাদের নিজ নিজ ওয়ার্ডে তুলু তুলু করে চলছে সেখানে রুহুল আমীন মোল্লা নাসিকের রাজস্ব বাড়াতে এবং বিদ্যুৎ সাশ্রয় করতে কাজ করে যাচ্ছেন। গত ২দিন ধরে ওয়ার্ডবাসীর পানির চাহিদা মিটাতে দীর্ঘ দিনের অবৈধ পানির সংযোগ বৈধ করনে নাসিকের অভিযানে কাউন্সিলর রুহুল আমীন মোল্লা সহযোগীতা করছেন। যদিও এই অভিযান নাসিকের প্রতিটি ওয়ার্ডে হবে কিন্তু সবার প্রথম রুহুল আমীন মোল্লা তার নিজ ওয়ার্ডে করে সাহসী ভুমিকা পালন করলেন। এখানে কে নিজের কে পরের তা বিবেচনা করছেননা। সতর্কতামূলকভাবে অবৈধ সংযোগগুলো বৈধ করা হচ্ছে। ভবিষ্যতে হয়তো আরো কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হতে পারে রুহুল আমীন মোল্লা স্পষ্ট বলে দিয়েছেন। গত দুদিন ভুইয়াপাড়া ও তাঁতখানা এলাকায় অবৈধ পানির সংযোগ বৈধকরনে নাসিকের অভিযানে রুহুল আমীন মোল্লা নিজে সাথে থেকে সহযোগীতা করেছেন। এছাড়াও সকল সমালোচনা ও অপপ্রচার উপেক্ষা করে তিনি ওয়ার্ডবাসীর পানির সমস্যা সমাধানে ধনকুন্ডা এলাকায় নাসিকের নিজ জায়গায় পানির পাম্প বসানো কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। তার এই সকল ভুমিকায় দলমত সকলেই প্রকাশ্যে বলছেন নাসিকের সাহসী কাউন্সিলর রুহুল আমীন মোল্লা। এ ব্যাপারে নাসিক ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা বলেন, অবৈধ সংযোগের কারণে ওয়ার্ডবাসীর পানির চাহিদা মেটাতে কষ্ট হচ্ছে। এসব অবৈধ সংযোগের কারণে সরকার ন্যায্য রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সতর্কতামূলকভাবে অবৈধ সংযোগগুলো বৈধ করা হচ্ছে। ভবিষ্যতে হয়তো আরো কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হতে পারে। এ ব্যাপারে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য তরুন ব্যবসায়ী শিহাব উদ্দিন রিপন বলেন, সত্যি আমাদের কাউন্সিলর রুহুল আমীন মোল্লা সাহসী। তিনি যেভাবে কাজ করছেন তা সাহস না থাকলে করতে পারতেন না। তার সৎ সাহস তাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আমরা এলাকাবাসী তার সাথে আছি। গোদনাইল এনায়েতনগর এলাকার যুবলীগ নেতা মমিনুল আলম পুষণ বলেন, আমাদের কাউন্সিলর আলহাজ্ব রুহুল আমীন মোল্লা উন্নয়নে কারো সাথে আপশ করেন না। তিনি এলাকাবাসীর জন্য কাজ করেন বলেই তার মধ্যে সাহস রয়েছে। বর্তমানে তিনি যেভাবে কাজ করছেন তা সত্যি প্রশংসার দাবী রাখে। আগামী দিনে এলাকাবাসী এর মুল্যায়ন করবে। আমরা আমাদের কাউন্সিলরের সুস্বাস্থ্য কামনা করছি। রেললাইন আদর্শ বাজার এলাকার যুবলীগ নেতা দিল মোহাম্মদ দিলু বলেন, যারা দীর্ঘদিন অবৈধভাবে ছিলো তাদেরকে বৈধ করে দিয়ে আমাদের কাউন্সিলর এলাকাবাসীর উপকার করছে। এরফলে একদিকে রাজস্ব আদায় হচ্ছে অন্যদিকে অবৈধরা বৈধ হচ্ছে। এই ধরনের কাজ সত্যি সাহসের ব্যাপার। ধনকুন্ডায় পাম্প বসে গেলে আমাদের পানির সদস্য অনেকাংশ কমে যাবে। আমাদের জন্য আমাদের কাউন্সিলর দিন রাত পরিশ্রম করছেন আমরা তার জন্য দোয়া করি আল্লাহ যেনো তাকে সুস্থ্য রাখেন। আগামীতে যেকোন কাজে আমরা কাউন্সিলরের সাথে আছি থাকবো। ইনশাআল্লাহ।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *