সবাই পাবে ভিটামিন এ ক্যাপসুল কোনো শিশু বাদ যাবে না —————-না.গঞ্জ সিভিল সার্জন

সংবাদটি শেয়ার করুন:

মনিকা আক্তার:
আগামী ৫জুন শনিবার থেকে ১৯জুন নারায়ণগঞ্জ জেলায় দুই সপ্তাহব্যাপী জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প¬াস ক্যাম্পেইন-২০২১ শুরু হবে। ক্যাম্পেইনে নারায়ণগঞ্জ জেলার ৫টি উপজেলায়(নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন ব্যতীত)৬-১১ মাসের ৪১ হাজার ৩৮১ জন শিশুদের একটি নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ক্যাপসুল(১ লাখ আই ইউ) এবং ১২-৫৯ মাস বয়সের ২ লাখ ৯৯ হাজার ৯৬৫ জন শিশুকে ১টি লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল (২ লাখ আই ইউ) খাওয়ানো হবে।জেলার ১ হাজার ৫৬টি স্থায়ী ও অস্থায়ী কেন্দ্রে ২ জঅন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মী,শিক্ষক ও সেচ্ছাসেবকের মাধ্যমে জাতীয় ভিটামিন এ প¬াস ক্যাম্পেইন এর কার্যক্রম বাস্তবায়নের পরিকল্পনা গ্রহন করা হয়েছে।
গত বৃহস্পতিবার (৩ জুন) সকাল সাড়ে ১১টায় জাতীয় ভিটামিন এ প¬াস ক্যাম্পেইন উপলক্ষ্যে সাংবাদিকদের জন্য ওরিয়েন্টশন কর্মশালার আয়োজন করে নারায়ণগঞ্জ সিভিল সার্জন। কর্মশালায় নারায়ণগঞ্জ সিভিল ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ বলেন,আগামী ৫ জুন থেকে ১৯ জুন পর্যন্ত দুই সপ্তাহব্যাপী জেলার পাঁচটি উপজেলায় ভিটামিন ‘এ’ প¬াস ক্যাম্পেইন শুরু হবে। এ সময়ে ১ হাজার ৫৬ কেন্দ্রে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সের ৪১ হাজার ৩৮১ জন শিশুকে নীল রঙের ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। আর ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সের ২ লাখ ৯৯ হাজার ৯৬৫ জন শিশুকে লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।ক্যাম্পেইনকে সফল করতে ইতিমধ্যে গত ৩১ মে নারায়ণগঞ্জ সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে ভিটামিন এ প¬াস ক্যাম্পেইন এর জেলা এ্যাডভোকেন্সি ও প¬ানিং সভা সম্পন্ন করেছি।এছাড়াও স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগীয় কর্মীদের সমন্বয়ে ওরিয়েন্টশন এবং প¬ানিং সভা সম্পন্ন করা হয়েছে।জেলার সকল মসজিদের ইমামদের জুম্মার নামাজের খুৎবা পাঠের আগে ও অন্যান্য সময় মসজিদে আগত মুসল্লীদের জাতীয় ভিটামিন এ প¬াস ক্যাম্পেইন এর বিষয়ে অবহিত করার জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মহোদয়কে ইতিমধ্যে পত্র দিয়ে অবহিত করা হয়েছে। সিভিল সার্জন আরো বলেন,কোভিড পরিস্থিতির কারণে স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে। তাই কেন্দ্রগুলোতে সবাই ভিড় করবেন না। একসাথে সবাই না এসে কিছু সময় পর পর টিকাদান কেন্দ্রে আসবেন। তাহলে ভিড় হবে না।প্রতিটি এলাকা ভাগ করে দেয়া আছে আমাদের।কোনো শিশু বাদ যাবে না, সবাই পাবে ভিটামিন এ ক্যাপসুল।ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুলে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। এটি একটি ভিটামিন ক্যাপসুল মাত্র। এই নিয়ে কোনো গুজব ছড়ালে তাতে কান দিবেন না। এ রকম কিছু শুনলে আমাদের অবহিত করুন।আপনাদের গণমাধ্যমে আমাদের অনুরোধ রইল আপনেরা বেশি করে প্রচার করেন যাতে সকল শিশু ভিটামিন এ প¬াস ক্যাপসুল খেতে পারে। এর আগে ভিটামিন এ প¬াস এবং ক্যাম্পেইন সম্পর্কে সাংবাদিকদের মাঝে বিভিন্ন বিষয়ে প্রেজেন্টেশন করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জেলা সার্ভিলেন্স অফিসার ডা. ফারহানা রহমান। ওরিয়েন্টশন কর্মশালায় আরো উপস্থিত ছিলেন উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম, জেলা তথ্য অফিসার সিরাজউদ্দৌলা খান, জেলা ইপিআই সুপার মো.লুৎফর রহমান, সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মো. আমিনুল হক, জুনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মো. শাকির হোসেন, জেলা স্বাস্থ্য তত্ত্বাবধায়ক স্বপন দেবনাথ সহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *