শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেবার দাবীতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর কমিটির মানববন্ধন

সংবাদটি শেয়ার করুন:

শহর প্রতিনিধি:
কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ শিক্ষা জীবন রক্ষার্থে অবিলম্বে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেবার দাবীতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আয়োজনে পৃথকভাবে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ও নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
গত বৃহস্পতিবার(৩ জুন) বেলা ১২ টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে মহানগর আবারো মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।এর আগে সকাল ১১টায় প্রথমে নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির আয়োজনে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করে।
মানববন্ধনটি মহানগর ইসলামী আন্দোলনের সভাপতি মুহাম্মদ নূর হোসেনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, করোনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা।দেড় বছর ধরে স্কুল-কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ।মাঝখানে কিছুদিন কওমি মাদরাসা চালু থাকলেও তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তার উপরে স্কুল-কলেজ মাদরাসার সব পরীক্ষা বন্ধ। অটো পাস দিয়ে সব চালিয়ে নিলো সরকার। এ বছরেও পরীক্ষা হয় কিনা তাও স্পষ্ট না। আজকে শিক্ষার্থীরা অটোপাসের আশায় বসে আছে। তারা পড়াশুনার অজুহাতে অনলাইনে বিভিন্ন গেমসে আসক্ত হয়ে যাচ্ছে। এছাড়াও স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় বাল্যবিবাহ, শিশুশ্রম বেড়েছে। তার সাথে সাথে অনেক শিক্ষার্থী মাদকাসক্ত হয়েছে। আজকে এই সরকার আমাদের দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করতেই এ ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। স্কুল-কলেজ খুলতে বললেই তাদের টাল-বাহানা শুরু হয়। অথচ মার্কেট,গার্মেন্টস, গণপরিবহণগুলো খুলতে তাদের কোনো সংকোচ হয় না। এই ষড়যন্ত্রে কোনো ভিনেদেশি চক্র কাজ করছে কিনা তা আমাদের খতিয়ে দেখতে হবে। সভাপতির বক্তব্যে মুহাম্মদ নূর হোসেন বলেন,সরকার সাধারণ মানুষদের নিয়ে তালবাহানা শুরু করছে।রমজান আসলেই করোনা বেড়ে যায়।আসলে তখন করোনা বাড়ে না।সরকার চায় না মানুষ আমল করুক।কারন রমজান মাস হলো আমলের মাস।তাই সরকার তখন মানুষদের আমল বিপদগামী করতে করোনা বেড়ে যাবার নাটক শুরু করে দেয়।সরকার দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকেও ধ্বংস করতে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে বললেই তাদের টাল বাহানা শুরু হয়ে যায়।করোনাও বেড়ে যায়।অথচ দেশের অন্যান্য সকল প্রতিষ্ঠান, গণপরিবহন, মার্কেট খোলা শুধু মাত্র স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা বাদে।তাই সরকারের কাছে আমাদের দাবী থাকবে অবিলম্বে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেবার। এসময় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সুলতান মাহমুদ,সহ-সভাপতি শাহাদাত হোসাইন খান,গিয়াসুদ্দিন মুহাম্মদ খালিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা শামসুল আলম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম ওমর ফারুক, প্রচার সম্পাদক বিল্লাল হোসাইন খান প্রমুখ।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *