সিদ্ধিরগঞ্জে ছেলে হত্যা মামলায় অভিযুক্ত পলাতক মায়ের নরসিংদীতে আত্মহত্যা

সংবাদটি শেয়ার করুন:

স্বাধীন বাংলাদেশ রিপোর্ট:
সিদ্ধিরগঞ্জে ছেলেকে হত্যার অভিযোগে স্বামীর দায়ের করা মামলায় পলাতক নাছরিন আত্মহত্যা করেছে। গত সোমবার দিবাগত রাতে নরসিংদী’র একটি আবাসিক হোটেলের একটি কক্ষ থেকে নাছরিনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত নাবিলের মা নাছরিন হোটেলের রেজিস্টার খাতায় তার নাম রেহানা আক্তার বলে উল্লেখ করেন।
নরসিংদী পুলিশ ও হোটেল কর্তৃপক্ষ জানায়, গত রোববার সন্ধ্যায় একাই নিরালা হোটেলের একটি কক্ষ ভাড়া নেন এক নারী। এ সময় হোটেল রেজিস্ট্রারে তার নাম ঠিকানা লেখা হয় রেহানা আক্তার (৩০), পিতা আবু তাহের, মাতা ফাতেমা জোহরা, গ্রাম ডৌকাদি, নরসিংদী। গত সোমবার দুপুর থেকে তার কক্ষের দরজা বন্ধ থাকায় ও তার সাড়া না পেয়ে সদর থানায় সংবাদ দেয় হোটেল কর্তৃপক্ষ। সংবাদ পেয়ে বিকাল সাড়ে ৩টায় পুলিশ কক্ষের দরজা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করলে জানালার গ্রীলের সাথে ওই নারীর ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পান। মরদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ। নরসিংদী সদর মডেল থানার ওসি শওকত জানান, গত সোমবার বিকেলে হোটেলের কক্ষ থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। এই নারীর সাথে সিদ্ধিরগঞ্জের ঘটনার নারীর মিল আছে কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত নই। তবে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের একটি টিম এসেছে বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য। সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি মো. মশিউর রহমান পিপিএম বার বলেন, গত সোমবার দিবাগত রাত ১’টায় নরসিংদীতে এক নারীর লাশ উদ্ধারের খবর পাই, যার বাবার নাম ও চেহারায় মিল পেয়েছি আমরা। লাশ শনাক্ত করতে আমাদের থানা থেকে পুলিশ পাঠিয়েছি। উল্লেখ্য, নাবিলের মৃত্যুর জন্য নিহতের মা নাছরিন আক্তারকে দায়ী করছেন বাবা ছগির আহমেদ। নিহত নাবিলের বাবা ছগির আহমেদ নাছরিন আক্তারকে আসামি করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলাও দায়ের করেন।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *