সিদ্ধিরগঞ্জে নিজ ঘরে ছেলের মৃত্যুতে স্ত্রীকে আসামী করে পিতার মামলা ## স্ত্রী পালিয়ে যাওয়ায় সন্দেহের সৃস্টি

সংবাদটি শেয়ার করুন:

স্বাধীন বাংলাদেশ রিপোর্ট:
সিদ্ধিরগঞ্জে নিজ ঘরেে নাজমুছ সাকিব নাবিল (২০) নামে এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে। গত রোববার (৩০ মে) রাত আড়াইটার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নাবিলের মৃত্যুর জন্য স্ত্রী নাছরিন আক্তারকে দায়ী করে স্বামী সগির আহমেদ সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় নাছরিন আক্তারকে আসামি করে একটি হত্যা মামলাও দায়ের করেছেন। তবে আসামি নাছরিন পলাতক রয়েছেন বলে জানান থানার ওসি মশিউর রহমান। পলাতকের কারনেই সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে। ওসি বলেন, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই তরুণের মৃত্যু হয়। গত সোমবার সকালে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এই ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।
নিহত নাবিল তার বাবা-মায়ের সাথে সিদ্ধিরগঞ্জের পাইনাদি নতুন মহল্লা এলাকায় থাকতেন। রাজধানীর ডেমরা এলাকায় দারুন নাজাত সিদ্দিকিয়া কামিল মাদ্রাসার ছাত্র নাবিল আলিম পরীক্ষার্থী ছিলেন। চলতি বছরের ৯ জানুয়ারি নাবিল পারিবারিকভাবে ইমা (১৮) নামে এক তরুণীকে বিয়ে করেন। তার স্ত্রী ঈদের পর থেকে বাবার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে সেখানেই অবস্থান করছেন।
নাবিলের বাবা ছগির আহমেদ পেশায় একজন ব্যাংক কর্মকর্তা। ইসলামী ব্যাংক নারায়ণগঞ্জ শাখায় কর্মরত আছেন তিনি। তার গ্রামের বাড়ি জেলার সোনারগাঁ উপজেলার পৈতারগাঁও এলাকায়। ছগির আহমেদ বলেন, রোববার সকালে তিনি বাসা থেকে কর্মস্থলে যান। রাত সাড়ে আটটার দিকে বাসায় ফেরার পর ঘর বাইরে থেকে বন্ধ দেখেন। পরে ঘরে প্রবেশ করার পর নাবিলকে মেঝেতে গুরুতর আহত অবস্থায় দেখেন তিনি। প্রথমে তাকে সাইনবোর্ডের প্রো-অ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত আড়াইটার দিকে নাবিলের মৃত্যু হয়।
ছগির আহমেদ বলেন, তার স্ত্রীর মানসিক সমস্যা ছিল। তবে কী কারণে তার ছেলেকে তিনি আঘাত করেছেন সে বিষয়ে কিছু বলতে পারেননি তিনি।
এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান বলেন, ভুক্তভোগী তরুণের শরীরে ছুরিকাঘাত ও মাথায় ভোতা কোনো অস্ত্র দিয়ে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তার লাশ ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ ঘটনাটি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করছে। আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *