ফতুল্লার উন্নয়নের জন্য ১৭৬ কোটি টাকা বরাদ্দ আনায় এমপি শামীম ওসমানকে ধন্যবাদ জানিয়েছে মীর সোহেল আলী

সংবাদটি শেয়ার করুন:

স্বাধীন বাংলাদেশ রিপোর্ট:
নারায়ণগঞ্জ জেলার উন্নয়নের রুপকার নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের সাংসদ সদস্য এ কে এম।একের পর এক উন্নয়ন করে চলছে শামীম ওসমান।ইতিমধ্যে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ দুই লাইনের লিংকরোডকে ছয় লেনের রোড করার কাজ শুরু করেছেন।অন্যদিকে ফতুল্লার উন্নয়নকে আরো এক ধাপ এগিয়ে নিতে সরকার থেকে আরো ১৭৬ কোটি টাকার বরাদ্দ নিয়ে এসেছে শামীম ওসমান। অন্যদিকে যেখানে দুই জেলায় এই বিশাল সমপরিমাণ বরাদ্দ পায় সেখানে এক উপজেলার জন্য এমপি শামীম ওসমানের বিশেষ কতৃতীত্বে এসেছে বিশাল পরিমান বরাদ্দ। ফতুল্লার উন্নয়নের জন্য ১৭৬ কোটি টাকার বরাদ্দকে একজন জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা দেখছেন এক এক রকমভাবে।ফতুল্লার উন্নয়নের জন্য এ বরাদ্দ আনায় ধন্যবাদ জানিয়েছে শামীম ওসমানকে মীর সোহেল আলী।কারন তিনি মনে করছেন শামীম ওসমানের কতৃত্বে এসেছে এ বরাদ্দ। নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ফতুল্লা যুবলীগের সভাপতি মীর সোহেল আলী বলেন,শামীম ওসমান ফতুল্লার উন্নয়নের জন্য যে টাকা এনেছে আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি এটা ফতুল্লাবাসীর জন্য সৌভাগ্যের ব্যাপার।আমাদের যে বড় সমস্যা ছিলো রাস্তাঘাটের।সেগুলো ঠিক হয়েছে।এরপর এখন দেখা যাচ্ছে জলাবদ্ধতা। এ জলাবদ্ধতার মূল কারন ড্রেনেজ ব্যবস্থা।আমি এমপি সাহেবের কাছে বিশেষভাবে অনুরোধ করবো আপনে এ বরাদ্দের সিংহভাগটাকে ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নে ব্যয় করেন।কারন আমাদের রাস্তাঘাট গুলো টেকসই আর ভবিষ্যৎ এ রাস্তাঘাটের কাজ চলবে।একটা রাস্তা ২ বছর যাবে যদি ড্রেনেজ ব্যবস্থা ভালো থাকে।আরসিসি ঢালাই রাস্তায় কত পানি জমে থাকে তবু রাস্তা নষ্ট হয় না।যদি পিচ ঢালাই হতো তবে কবে নষ্ট হয়ে যেতো। তিনি বাংলাদেশের অন্যতম আন্তর্জাতিক ষ্টেডিয়াম খান সাহেব ওসমান আলী ষ্টেডিয়ামের সংস্কার এবং লিংকরোড সংলগ্ন মেডিকেল কলেজ ও একটা হার্ট ইনষ্টিটিউট করার জন্য শামীম ওসমানকে আহবান জানিয়ে বলেন,শুধু নারায়ণগঞ্জ জেলার জন্য খান সাহেব ওসমান আলী ষ্টেডিয়াম বাংলাদেশের এক নাম্বার ষ্টেডিয়াম ছিলো কিন্তু ড্রেনেজের ব্যবস্থা ও সামনে ময়লা ফেলানোর আজ এ অবস্থায় একটি আন্তর্জাতিক ষ্টেডিয়াম। আমি অনুরোধ করবো এ ষ্টেডিয়ামকে আবারো পূর্বের ন্যায় যেনো ফিরিয়ে আনা হয় ড্রেনেজের ব্যবস্থা করে।সেই সাথে শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জ জেলায় মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও একটা হার্ট ইনষ্টিটিউট করার কথা বলেছে।আমি তাকে অনুরোধ করবো এ হাসপাতাল যেনো নারায়ণগঞ্জ লিংকরোড সংলগ্ন দেওয়া হয়।কারন অনেক হাটের রোগীকে ঢাকা নিতে হয় রাস্তায় তীব্র যানজটের কারনে অনেকেই মারা যায় তাই লিংকরোড সংলগ্ন হলে যাতে সবাই দ্রুত এখানে আসতে পারে।এবং অন্যান্য যেমন গাজীপুর, নরসিংদী, মুন্সিগঞ্জ সেবা নিতে পারে। মীর সোহেল আলী শামীম ওসমানকে ধন্যবাদ জানিয়ে আরো বলেন,আমরা ফতুল্লায় উন্নয়নের সব কিছুই পেয়েছি।এখন শুধু উন্নয়নের দরকার আমাদের ড্রেনেজের।এতে জলাবদ্ধতা দূর হবে ড্রেনেজ ব্যবস্থা ভালো হলে।আর শামীম ওসমান ফতুল্লার এ সমস্যার বিষয়টি নজরে নিয়ে ফতুল্লার উন্নয়নের জন্য যে বরাদ্দ এনেছে তার জন্য তাকে ধন্যবাদ জানাই।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *