কাউন্সিলর খোরশেদ আলমের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে শহরে মানববন্ধন

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শহর প্রতিনিধি:
বার বার নির্বাচিত নাসিক ১৩ নং ওয়ার্ডের জনপ্রিয় কাউন্সিলর ও দেশব্যাপী আলোচিত করোনা যুদ্ধা মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ এর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক আইসিটি আইনে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও হয়রানির দাবীতে ১৩ নং ওয়ার্ড ও নারায়ণগঞ্জের সর্বস্তরের জনগনের মানববন্ধন। গতকাল সোমবার (২৪ মে) বিকেল সাড়ে ৩টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে জাফরুল্লাহ খান চেঙ্গিসের সভাপতিত্বে এ মানববন্ধনে কয়েক হাজার লোক অংশগ্রহন করেন। মানববন্ধনে সিনিয়র আইনজীবী এড. বোরহান সরকার বলেন, করোনাকালে যখন মা ছেলেকে চিনতো না, ছেলে বাবাকে চিনত না তখন এই খোরশেদ করোনা রোগীদের আপনজন হয়ে তাদের জন্য কাজ করেছেন। আজকে তার নামে এমন মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে।আমি শিউলিকে বলতে চাই এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে নিন। নয়তো মানুষ আপনাকে প্রত্যাহার করবে। আমি যতদূর
জানি আপনার ইতোমধ্যে ৫টি বিয়ে করেছেন। আপনি আপনার আরেক স্বামীকে নারী নির্যাতন মামলা দিয়েছেন। তারিকুল
রহমান স্বপন সেই ব্যাক্তির নাম। তার সাথে এখনও আপনার ডিভোর্স হয়নি। আপনার পেছনে থেকে কে বা কারা কলকাঠি নাড়ছে তা ও প্রকাশ পাবে। আপনি ছাড় পাবেন না।অবিলম্বে আপনার এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে নিন। নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান আজাদ বিশ্বাস বলেন, মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের বিরুদ্ধে যে ষড়যন্ত্র হচ্ছে তাতে শুধু সেই নারী জড়িত নয়। শুধু ওই নারীকে আমরা অপবাদ দেব না। অতীতেও একটি মহল তৈমূর-খোরশেদের সুনামকে নষ্ট করতে চেয়েছে।মনে রাখবেন বিল ক্লিন্টন ও জিন্নাহর মত নেতাদের বিরুদ্ধেও নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ আনা হয়েছিল। ইতিহাস থেকে তাদের মুছে ফেলা যায়নি। যারা মনে করেন এমন কার্যকালাপের দ্বারা খোরশেদের সুনাম নষ্ট করবেন তারা মগের মুল্লুকে বাস করছেন।সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য বলতে চাই আপনারা সত্য উদঘাটন করুন। ভুল তথ্য আপনারা উপস্থাপন করবেন না। এড.আব্দুল হামিদ খান ভাসানী বলেন,শিউলি বেগম আপনে মা জাতি।আপনাদের মা জাতির পেট থেকেই আমাদের জন্ম।কিন্তু আমাদের নারায়ণগঞ্জের একটা চক্র আছে তারা মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদকে রাখতে চায় আবার শিউলি বেগমকে রাখতে চায়।আপনাদের স্বার্থে ও নিজের স্বার্থে আপনে মামলা প্রত্যাহার করেন।মা জাতি শিউলি বেগম এর আগে আমাদের কোটে আপনার ৩টা যৌতুকের মামলা আছে। মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদকে নিয়ে সারা বিশ্ব গর্ব করে। আপনে শিউলি বেগম মামলা প্রত্যাহার করেন কারন যে চক্র আপনাকে নিয়ে খেলছে তারা হয়তো ভূলে গেছে নারায়ণগঞ্জ কোটে আপনার আরো তিনটি যৌতুকের মামলা চলমান আছে।সে মামলা চলমান থাকা স্বত্তেও কিভাবে আদালতে আপনার মামলা নেয়। ৯০ ব্যাচের আলমগীর হোসেন আশিস বলেন,টানবাজার পতিতালয় থেকে উচ্ছেদকৃত সেই শিউল ইসদারে জায়গা নিয়েছে।সেই পতিতাকে আমরা ৯০ ব্যাচের সদস্যরা ভেঙে ঘুরিয়ে দিবো। নূরুল হক দীপু বলেন,এই নারী তুমি কার সহযোগীতা নিয়ে এ ষড়যন্ত্র করছো। অতিশীঘ্রেই এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করো তা না হলে আমরা আপনাকে নারায়ণগঞ্জ থেকে জুতা দিয়ে বাইড়ায়া বের করবো।এ নারী একটা কালনাগিনী। এ কালনাগিনীকে ধ্বংস করা হবে। এসময় মানববন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক নেতা মাহবুবুর রহমান ইসমাইল, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদির দেওয়ান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন খান, প্রফেসর অধ্যাপক মনিরুল ইসলাম, সামসুর রহমান খান বেনু, আনোয়ার মাহমুদ বকুল, জয়নাল আবেদীন, রহিমা শরীফ মায়া,নারী সংস্থার সাধারণ সম্পাদক পপি রাণী সরকার, নিজাম মুন্সী, এড. রফিকুল ইসলাম রফিক,এড. শরীফুল ইসলাম শিপলু, আমানউল্লাহ আমান, শাহাবুদ্দিন খন্দকার, আশরাফুল ইসলাম রিপন, মাহবুবুর রহমান, আকমল সরকার প্রমুখ।


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *