পাগলা শাহীবাজার কবরস্থানে লাশ দাফনে বাধা ৫ মসজিদ কমিটির প্রতিবাদ সমাবেশ

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শহর প্রতিনিধি:
বিতর্ক যেনো পিছু ছাড়ছে না পাগলা শাহিবাজার মসজিদ ও কবরস্থান কমিটির। কবরস্থানের জমি বিক্রয় ও মসজিদ-কবরস্থানের নামে উত্তোলনকৃত অর্থ আত্মসাতের পর এবার বিতর্কিত ও অমানবিক এক সিদ্ধানন্ত গ্রহনে শাহিবাজার মসজিদ ও কবরস্থান কমিটির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে মুসলিমপাড়া ৫টি মসজিদ কমিটি সহ এলাকার গন্যমান্য বক্তিবর্গ।
এ সময় প্রতিবাদ সমাবেশে তারা বলেন, পাগলা মুসলিমপাড়ার কোন মৃত ব্যক্তি শাহীবাজার কবরস্থানে দাফন করতে দেওয়ার হবে না, এই ধরনের সিদ্ধান্ত জসিম উদ্দীন কোন মতেই দিতে পারেনা। এই কবরস্থান জসিম উদ্দিনের বাপ দাদার কেনা সমপত্তি না। কে এই জসিম উদ্দিন যে এলাকায় এমন প্রভাব খাটাবে। এই কবরস্থানে আমাদের বাপ দাদা স্ত্রী সন্তান শুয়ে আছে, আমাদের সকলের অর্থের বিনিময়ে এই কবরস্থান ও মসজিদ সুন্দর করতে সক্ষম হয়েছি। ধর্মমীয় পতিষ্ঠানে কমিটির দায়ীত্বে তারাই থাকতে পারে যারা মসিজিদে পাচঁ ওয়াক্ত জামাতের সাহিত নামাজ পড়ে। কুতুবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বর্তমান মসজিদ ও কবরস্থান কমিটির সভাপতি জসিম উদ্দীন সে এই এলাকার বাসিন্দা বা ভোটার নয়, তার এখানে আশার কারন হচ্ছে এই শান্ত এলাকাটাকে অসান্ত করার জন্য। তাই সে চেয়ারম্যান মনিরুল আলম সেন্টুর সাথে নিজেরা ঘরের বিতর বসে মনগরা একটি পকেট কমিটি তৈরি করেছে আর এই অবৈধ কমিটি আমরা মানিনা। কবে কি ভাবে এই কমিটি করেছে আমরা কিছুই জানিনা। কমিটি করার সময় পূর্বের কমিটিকে তারা কিছুই জানাইনি নিজেদের বলয়ের লোকদের নিয়ে এই কমিটি তৈরি করেছে। মানুষের শেষ ঠিকানা হচ্ছে কবরস্থান আর আল্লাহর ঘর হচ্ছে মসজিদ এখানেও জসিম উদ্দিন রাজনীতি শুরু করছে। আমরা মুসলমান হয়ে তা মানতে পারবো না।
বৃহস্পতিবার (২০ মে) রাতে কুতুবপুর ইউনিয়ন ৫ নং ওয়ার্ড মেম্বার আলাউদ্দিন হাওলাদারের কার্যালয়ে শাহিবাজার মসজিদ ও কবরস্থান কমিটির বিরুদ্ধে এই প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত।
এ সময় কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুল আলম সেন্টুকে উদ্দ্যেশ করে আলাউদ্দিন হাওলাদার বলেন, চেয়ারম্যান সাহেব জসিম উদ্দিনের মনগড়া কমিটির অনুমোদন দিয়েছেন কি ভাবে তিনি এই ধরনের দুষকৃতি লোকদের তৈরি করা কমিটির অনুমোদন দিলো। আমি পূর্বের কমিটির সভাপতি ছিলাম কখন কি ভাবে কমিটি গঠন করা হলো আমার জানা নেই এমন কি পূবের কমিটির বেশি সংখক সদস্যকে জানানো হয়নি। জসিম উদ্দিন নিজের লোক নিয়ে কমিটি গঠন করেছে। চেয়ারম্যান কি করে এমন কমিটির অনুমোদন দিলো তা অনেকের অজনা। চেয়ারম্যান মনিরুল আলম সেন্টু কুতুবপুরের একজন অভিভাবক তিনি কুতুবপুরের সব খবরই রাখেন তিনি যেনে শুনে কি ভাবে এমন কাজটি কলেন। আমি তাদেরকে সাবধান করে দিতে চাই কবরস্থান কারো বাবার পৈত্রিক সম্পত্তি নয় কবরস্থান সর্বসাধারণের এখানে যে কারও কবর দেওয়ার অধিকার রয়েছে আপনি জসিম সভাপতি হয়েছেন বিদায় আপনি যা খুশি তা করবেন সেটা আমরা কখনো মেনে নিব না।
আমরা সকলে মিলে সাংসদ আলহাজ্ব একেএম শামীম ওসমানের সাথে কবরস্থানের বিষয় নিয়ে অতি তাড়াতাড়ি আলোচনা করব এবং কুতুবপুর ইউনিয়ন সভাপতি জসিম উদ্দিন কিভাবে কবরস্থানে লাশ দাফন করতে বাধা প্রধান করে সে বিষয়েও তাকে আমরা অবগত করব। আমার মনে হচ্ছে কুতুবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি
জসিম উদ্দিন এমপি মহদয়ের সম্মান ক্ষুন্ন করতেই এমন কাজ করে চলছেন। আমি এই এলাকার মেম্বার হিসেবে আমার ওয়ার্ডের জনগণের সুখ দুঃখের পাশে ছিলাম ভবিষ্যতেও থাকব। আমার নেতা আলহাজ্ব একেএম শামীম ওসমানের সম্মান কেউ নষ্ট করতে চাইলে তা কখনো হতে দেবো না। সে যেই হোক না কেন।
জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবত পাগলার শাহীবাজার এলাকায় মসজিদ ও কবরস্থানের কমিটি নিয়ে দন্ধ চলে আসছে। কবরস্থান ও মসজিদের কাজ নিয়ে ইতিপূর্বে অনেক আন্দোলন মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে পূর্বের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর সুষ্ঠ সমাধান ও স্বচ্ছ কমিটি গঠন করার জন্য আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। পরবর্তীতে আহ্বায়ক কমিটির আহবায়ক জসিম উদ্দিনকে সভাপতি করে ৩৬ সদস্যের পুনাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। কিন্তু কমিটির বিতর্ক যেনো কোন মতেই পিছু ছাড়ছে না।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মোঃ নূরুল হক জমাদ্দার, প্রক্তন সহ- সভাপতি মসজিদ ও কবরস্থান কমিটি, বি এম আনোয়ার হোসেন সাবেক কোষাধক্ষ্য শাহী মহল্লা কবরস্থান কমিটি, মোঃ শাহজালাল সভাপতি বায়তুল আমান জামে মসজিদ, মোঃ আদালত ভুইয়া সাধারণ সম্পাদক বায়তুল হামদ্ জামে মসজিদ, মোঃ মজিবর রহমান শেখ, মোঃ আনিছউল হক,সভাপতি মসজিদ এ,বাইতুল মামুর জামে মসজিদ, মোঃ চাঁন মিয়া মসজিদ এ,বাইতুল মামুর জামে মসজিদ, হাজী মোঃ অলিউল্লাহ মোঃ সাহাবুদ্দিন , সাধারণ সম্পাদক পূর্ব মুসলিম পাড়া জামে মসজিদ, মোঃ নূরুল আমিন, আলহাজ্ব আফসার করিম জামে মসজিদ, মোঃ নূরুল হক সহ- সভাপতি বায়তুল জামাত জামে মসজিদ, মোঃ রাসেল মুসলিমপাড়াবাসী মোঃ সুজন ,আলী আকবর মেস্তফা বাইতুল জান্নাত মসজিদ, মোঃ রেজাউল করিম মুসলিম পাড়া কাসিন্দা, আ: মালেক সাধারণ সম্পাদক ৫ নং কুতুবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, আলহাজ্ব মো. তানভির রহমান সভাপতি মুসলিমপাড়া বাইতুল আমান ইসলামী পাঠাগার, মোঃ আলী আরশাদ, মোঃ আলমগীর,আফসার উদ্দীন,হায়দার আলী, মো. লিটন, মো. আরশেদ আলী, মো. জিয়া, আমির হোসেন,মো. ঘায়দার আলী,মো. ইউনূছ মিয়া, স্বপন হাওলাদার,রিয়াজ মিয়া প্রমুখ।


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *