গার্মেন্টস শ্রমিকের ১৭ দফা দাবিতে বন্দরে মালিক-শ্রমিকের সংঘর্ষে আহত-১০ ## এমপি সেলিম ওসমানের হস্তক্ষেপে আন্দোলন নিয়ন্ত্রনে

সংবাদটি শেয়ার করুন:

এন এম সুজন:
নারায়ণগঞ্জ বন্দরের ধামগড় ইউপির কামতাল গ্রামে অবস্থিত রপ্তানিমুখী প্রতিষ্ঠান টোটাল ফ্যাশন লিমিটেডের স্থানীয় ১২ শ্রমিক ছাটাই পূর্ণ বহালসহ ১৭ দফা দাবিতে আন্দোলন করেন বিক্ষুদ্ধ শ্রমিক । গত ২০-ই মে বৃহস্পতিবার সকালে গার্মেন্টের ভেতরে কম্পিউটার, কাঁচের গ্লাসসহ মূল্যবান আসবাবপত্র ভাংচুর করেছে বিক্ষুদ্ধ শ্রমিকরা। উত্তেজিত শ্রমিকদের হামলায় গার্মেন্ট ব্যবস্থাপক কবিরুল আহম্মেদ, পিএম নুসরাত, জিএম জাহের, সিকিউরিটি ইনচার্জ নাহিদ, সুপারভাইজার জায়েদ ও নারী শ্রমিক ময়না, পুতুলি সহ কমপক্ষে ১০জন গুরুতর আহত হয়। ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বিকেএমইএ এর সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের জরুরি হস্তক্ষেপে শ্রমিক আন্দোলন নিয়ন্ত্রনে আনেন এবং আগামী ২৩ মে মধ্যে নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশ ও কলকারখানা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা চুড়ান্ত তদন্ত করে একটি তদন্ত রিপোর্ট বিকেএমইএ এর সভাপতির কাছে প্রদান করবেন। তদন্ত শেষ না সময় পর্যন্ত কারখানাটি আপাতত শ্রম আইনের ১৩(১) ধারা অনুযায়ী সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
জানা গেছে, ঈদের ছুটির পর বৃহস্পতিবার থেকে চালু রাখার পূর্বের সিন্ধান্ত। সকাল সাড়ে ৭ টা থেকে শ্রমিক ভেতরে প্রবেশ শুরু করে। স্থানীয় শ্রমিকদের জন্য একটি গেইট। দুরবর্তী এলাকার শ্রমিকদের জন্য বিকল্প গেইট। দুই গেইটেই নজরধারি অবস্থানে সিকিউরিটি সদস্যরা পরিচয় পত্র চেক করে ভেতরে প্রবেশ করানো হচ্ছে। এতে স্থানীয় শ্রমিকদের গেইটে দীর্ঘ লাইনের সুষ্টি হয়। এসময় সিকিউরিটি গার্ডের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়ে সুইং সেকশনের ময়না নামের নারী শ্রমিক । সিকিউরিটি গার্ডের ধাক্কায় মাটিতে পড়ে যায় ওই নারী শ্রমিক। সিকিউরিটি গার্ড নারী শ্রমিকের দাঁত ভেঙ্গেছে এই গুজব ছড়িয়ে পড়ে পুরো গার্মেন্ট। মুহুর্তের মধ্যে স্থানীয় শ্রমিকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে স্থানীয় ২/৩ শত শ্রমিক লোহার রড ও লাঠিসোটা নিয়ে গার্মেন্টের ভেতরে প্রবেশ করে ভাংচুর তান্ডব চালায়। স্থানীয় ছাটাইকৃত ১২ শ্রমিককে পূর্ণ বহালসহ ১৭ দফা দাবিতে গার্মেন্ট ভেতরে অবস্থান নেয় শ্রমিকরা । এ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ-অঞ্চল) শেখ বিল্লাহ, নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশের সিনিয়র এএসপি জাহাঙ্গীর হোসেন, শিল্প পুলিশের ইন্সপেক্টর ইফতেকার, বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকার, বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দিপক চন্দ্র সাহা, কামতাল তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মো. সুজন হক, ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মাসুম আহম্মেদ। দুপুর ১২ টার দিকে টোটাল ফ্যাশন গার্মেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. হাসিবউদ্দিনের সঙ্গে প্রশাসনের উধ্বর্তন কর্মকর্তারা আলোচনার মাধ্যমে ছাঁটাই কৃত ১২ শ্রমিকের আইডি কার্ড ফেরত দিয়ে কারখানাটি আপাতত শ্রম আইনের ১৩(১) ধারা অনুযায়ী আগামী রোববার পর্যন্ত সাময়িক বন্ধ ঘোষানা করেন এবং বিকেএমইএ এর সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য এ, কে, এম, সেলিম ওসমানের উপস্থিতিতে আলোচনায় বসে শ্রমিকদের দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাসে শ্রমিকরা অবস্থান তুলে নেন।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *