লকডাউনে থাকা ফতুল্লায় ৯‘শ অসহায় পরিবহন শ্রমিকের হাতে অর্থ সহায়তা প্রদান ##এমপি শামীম ওসমানের প্রতি ট্যাংকলরী শ্রমিক নেতা আশ্রাফ উদ্দিনের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ

সংবাদটি শেয়ার করুন:

স্বাধীন বাংলাদেশ রিপোর্ট:
লকডাউনে বন্ধ থাকা গণপরিবহনের দুর্দশাগ্রস্থ শ্রমিকদের পাশে দাড়িয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান। নারায়ণগঞ্জের ৯শ’ পরিবহন শ্রমিকদের মাঝে তিনি ব্যক্তিগত তহবিল থেকে আর্থিক সহায়তা তুলে দিয়েছেন। এসময় অনেক পরিবহন শ্রমিক কথা বলতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পরেন। গত মঙ্গলবার (১১ মে) ফতুল্লার শিবু মার্কেট এলাকার নাসিম ওসমান মেমোরিয়াল পার্কে এই সহায়তা প্রদান করা হয়। এদিকে ক্ষতিগ্রস্থ ও দুর্দশাগ্রস্থ পরিবহন শ্রমিকদের পাশে সহায়তার হাত বাড়ানোয় উন্নয়নের রুপকার না.গঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য জননেতা একেএম শামীম ওসমানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি নং বি-১৭৫৩ কেন্দ্রিয় কমিটির যুগ্ন-সম্পাদক দৈনিক স্বাধীন বাংলাদেশ পত্রিকার প্রকাশক উদীয়মান তরুন ব্যবসায়ী আশ্রাফ উদ্দিন। এক বিবৃতিতে আশ্রাফ উদ্দিন বলেন, মহামারী করোনায় অনেক শ্রমিক কর্মসংস্থান হারিয়ে দুর্দশাগ্রস্থ হয়ে খুব কষ্টে জীবন-যাপন করছেন। সেই সকল পরিবহন শ্রমিকদের দুর্দশার কথা চিন্তা করে জননেতা একেএম শামীম ওসমান সাধ্যমতো পাশে দাড়ানোয় ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে আমাদের নেতা গনমানুষের নেতা একেএম শামীম ওসমানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।
আশ্রাফ উদ্দিন আরো বলেন, আর্থিক সহায়তা পাওয়া অনেক শ্রমিকদের দেখেছি নিজেদের দুর্দশার কথা বলতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পরেছিন। অনেক শ্রমিকরা যথার্থ ও সত্য কথা বলেছেন। তাদের বক্তব্য হলো গাড়ী চললে আমরা মজুরী পাই, পরিবার নিয়ে পেট চালাই। অনেকদিন ধরে গাড়ী বন্ধ, সামনে ঈদ। অনেকে শামীম ওসমানকে নিয়ে পরিবহন সেক্টর জড়িয়ে নানা কুৎসা রটনা করে। আমরা নিম্ন আয়ের মানুষ হলেও আমরা অনেক কিছুই বুঝি। যারা এসব বলে তাদের দেখলাম না গত বছর আর এই বছর আমাদের পাশে দাড়াতে। শেষ পর্যন্ত শামীম ওসমান আর তার ভাই এমপি সেলিম ওসমানই আমাদের সহায়তা করেন। তাদের এই কৃতজ্ঞতার সাথে সাথে আমিও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। আমরা শামীম ওসমানের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ূ কামনা করি যেনো তিনি সুস্থ্য থেকে আরো বেশী সেবা করে যেতে পারেন।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *