সিদ্ধিরগঞ্জে এক সময়ে কর্মরত ডিএসবি’র ইয়াকুব না ফেরার দেশে চলে গেলেন ## কাজী আলমাছের আবেগঘন স্ট্যাটার্স

সংবাদটি শেয়ার করুন:

বিশেষ প্রতিনিধি:
না ফেরার দেশে চলে গেলেন এক সময় সিদ্ধিরগঞ্জে ডিএসবিতে কর্মরত বাংলাদেশ পুলিশের কর্মকর্তা মোঃ ইয়াকুব আলী। গতকাল বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টায় সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুর খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন…..)। তার বয়স হয়েছিল (৫৫) বছর। মেধাবী এই পুলিশ কর্মকর্তার অকাল মৃত্যুতে পুলিশ, সাংবাদিক ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, পিত্তথলিতে ব্যথা অনুভব করে দীর্ঘদিন যাবত পুলিশ কর্মকর্তা ইয়াকুব আলী সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুর খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় সেখানে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী ও দুই পুত্রসন্তানসহ বহু আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। বাদ আছর জানাজা শেষে নিজ গ্রাম পাবনায় পারিবারিক কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়। এদিকে পুলিশ কর্মকর্তা ইয়াকুবের মৃত্যুতে আবেগঘন স্ট্যাটার্স দিয়েছেন ফটোসাংবাদিক কাজী আলমাছ। তিনি তার ফেসবুক পেইজে লিখেছেন…..
সবাইকে মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে এটাই চিরন্তন সত্য। উনার নাম হচ্ছে মো: ইয়াকুব আলী, উনি পুলিশের ডিএসবিতে কর্মরত ছিলেন। আজ বেলা ১১:৩০ মিনিটে না ফেরার দেশে চলে গেলেন( ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন). আমার চোখে বিগত কয়েক বছরে দেখা আযান হওয়ার সাথে সাথে ডাক দিতেন চলেন নামাজ পড়তে যাই। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজি ছিলেন পুলিশের এই কর্মকতা। আমাকে এতোটা ভালোবাসতেন তা বলে বোঝানো যাবেনা। হে আল্লাহ আপনি ইয়াকুব ভাইকে জান্নাতুল ফিরদাউস নসীব করেন। সুম্মা আমিন। ইয়াকুব ভাইয়ের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার আপন ভাতিজা টিপু। ইয়াকুব ভাইয়ের মরদেহ তার নিজ গ্রাম পাবনায় পৌঁছে গেছে কিছুক্ষণ আগে।ওখানেই দাফন করা হবে পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *