না.গঞ্জ জেলার বৃহৎ দুইটি হাসপাতালে নেই কোন করোনা সংক্রামণ রোধে সচেতনতা

সংবাদটি শেয়ার করুন:

হাসপাতাল প্রতিনিধি:
করোনা সংক্রমণ অধিক মাত্রায় বৃদ্ধিতে সরকার সারাদেশে সর্বাত্মক লকডাউনের বিধিনিষেধ আরোপ করলেও হাসপাতালগুলোতে দেখা যায় একেবারে ভিন্ন চিত্র।নেই কোন সামাজিক দূরুত্ব।গত বছর করোনা সংক্রামণ রোধে হাসপাতালগুলোতে হাত ধুয়ার ব্যবস্থা থাকলেও এবছর তা দেখা যায় ভিন্ন চিত্র।হাত ধুয়ার বেশিন গুলো ময়লা হয়ে আছে কোথাও কলগুলো ভাঙা বা সাবান পানির কোন ব্যবস্থা নেই।বিশেষ করে নারায়ণগঞ্জ ৩০০শয্যা বিশিষ্ট খানপুর ও নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে দেখা যায় এ চিত্র। গতকাল বুধবার(২১ এপ্রিল)হাসপাতালগুলোতে গিয়ে দেখা যায় হাত ধুয়ার ব্যবস্থা নেই কোন সেই সাথে সামাজিক দুরুত্বেরও নেই কোন বালাই। খানপুর হাসপাতালে দুইটা হাত ধুয়ার বেসিন থাকলেও নেই কোন পানির ব্যবস্থা এবং সাবান।অনেকদিন যাবৎ ব্যবহার না করায় ময়লায় ভরে আছে বেসিন দুইটা। একিই অবস্থা নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে।কল ভেঙে পড়ে আছে।নেই কোন পানি বা সাবান।ময়লায় একগাদা অবস্থায়। করোনার টিকা নিতে আসা মামুন জানায়,সরকার দেশে করোনা সংক্রামণ রোধে কঠোর লকডাউন দিয়েছে কিন্তু দেখেন হাসপাতালে এখানে যে কেউ হাত ধুয়ে হাসপাতালে প্রবেশ করবে তারই কোন ব্যবস্থা নেই।নেই কোন সামাজিক দুরুত্ব।দেখেন কত লম্বা লাইন দিতে হয়েছে তারপরও গায়ের সাথে গা লেগে যাচ্ছে এক এক জনের।এত বড় হাসপাতাল এক জায়গাতেও নেই করোনার জীবাণুনাশক ছিটানোর মেশিন বা হাত ধুয়ার ব্যবস্থা।আর সরকার বলছে সবাইকে হাত ধুতে,মাস্ক পড়তে। অন্যদিকে স্ত্রীর জন্য জরুরি সেবা নিতে আসা আলমগীর বলেন,এত বড় একটা হাসপাতালে প্রবেশ করলাম অথচ হাত ধুয়ার কোন ব্যবস্থা নেই।কার শরীরে করোনা ভাইরাস আছে কে বলতে পারে।হাসপাতাল কতৃপক্ষও নিচ্ছে এর কোন ব্যবস্থা।যা খুবিই দুঃখজনক।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *