লঞ্চ ডুবিয়ে দেওয়া সেই ঘাতক কার্গো জাহাজ আটক

সংবাদটি শেয়ার করুন:

মো.শওকত হোসেন:
শীতলক্ষ্যা নদীতে ‘সাবিত আল হাসান’ নামের লঞ্চকে ধাক্কা দিয়ে ডুবিয়ে দেওয়ার ঘটনায় কার্গো জাহাজ এমভি এসকেএল-৩-এর ১৪ জন স্টাফকে আটক করা হয়েছে। জাহাজটিও জব্দ করেছে কোস্টগার্ড। গতকাল বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে জাহাজটি জব্দ ও স্টাফদের আটক করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন গজারিয়া নৌপুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক আব্দুস সালাম। তিনি বলেন, গজারিয়ার মেঘনা নদী থেকে কোস্টগার্ডের সদস্যরা কার্গো জাহাজটি জব্দ করে। এসময় কার্গোতে থাকা ১৪ জন স্টাফকেও আটক করেন তারা। পরে জাহাজটি নৌপুলিশকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে খবর দেওয়া হয়েছে। এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, পাগলা কোস্টগার্ড স্টেশনের সদস্যরা গজারিয়া থেকে কার্গো জাহাজটি আটক করেছে বলে জানতে পেরেছি। বেশ কয়েকজন স্টাফকেও আটক করা হয়েছে। বিস্তারিত পরে জানানো হবে। উল্লেখ্য, গত রােববার (৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৫ টা ৫৬ মিনিটে সাবিত আল হাসান বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ টার্মিনাল থেকে ছেড়ে যাওয়ার মাত্র ১৫ মিনিটের মাথায় নির্মাণাধীন শীতলক্ষ্যা তৃতীয় সেতু (চায়না ব্রীজ) ৬টা ১০মিনিটে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে লঞ্চটি। এ দুর্ঘটনায় ৩৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। হয়েছে। দুর্ঘটনার জন্য দায়ী এসকেএল-থ্রি (এম ০১২৬১৩) নামের একটি কোষ্টার জাহাজ পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে যাত্রীবাহী জাহাজটিকে ২০০ মিটার টেনে নিয়ে যায়। দুর্ঘটনা ঘটিয়ে এতাে বড় দুর্ঘটনার জন্য ভ্রুক্ষেপ করেননি জাহাজটির চালকরা। বেপরােয়া গতিতে পালিয়ে যায় কার্গোটি।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *