শীতলক্ষ্যায় লঞ্চ ডুবি ঘটনাস্থলে মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটির পরিদর্শন

সংবাদটি শেয়ার করুন:

স্টাফ রিপোর্টার:
নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যায় কোষ্টার জাহাজের ধাক্কায় ‘সাবিত আল হাসান’ নামে একটি যাত্রীবাহী লঞ্চডুবির ঘটনায় নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের গঠিত ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। গতকাল মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) তদন্ত কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। আগামী সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবে কমিটি।
কমিটির আহ্বায়ক নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব আবদুছ ছাত্তার শেখ। কমিটিতে সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) পরিচালক (নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক) মো. রফিকুল ইসলাম।
কমিটির সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন- নৌপরিবহন অধিদফতরের চিফ নটিক্যাল সার্ভেয়ার ক্যাপ্টেন জসিম উদ্দিন সরকার, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) প্রধান প্রকৌশলী, জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি, ফায়ার সার্ভিস অধিদফতরের একজন প্রতিনিধি এবং নৌপুলিশের একজন প্রতিনিধি।
জানা গেছে, কমিটিকে দুর্ঘটনাস্থল এবং দুর্ঘটনাকবলিত নৌযান পরিদর্শন করে ১৯৭৬ সালের বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল অধ্যাদেশের ক্ষমতাবলে দুর্ঘটনার কারণ উদঘাটন এবং দুর্ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তি/সংস্থাকে শনাক্ত করতে হবে। এছাড়া দুর্ঘটনা প্রতিরোধে করণীয় নির্ধারণ করে সুনির্দিষ্ট সুপারিশ দেবে।
বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের পরিদর্শক সমর কৃষ্ণ জানান, ৮ এপ্রিল বেলা ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত কয়লাঘাট (দুর্ঘটনাস্থল শীতলক্ষ্যা নদীর পশ্চিম পাড়ে) লঞ্চ দুর্ঘটনায় মৃত যাত্রীদের আত্মীয় স্বজন, বেঁচে যাওয়া যাত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে ‘গণ শুনানি’ অনুষ্ঠিত হবে।
উল্লেখ্য, ৪ এপ্রিল সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় লঞ্চ টার্মিনাল থেকে যাত্রী নিয়ে মুন্সিগঞ্জে যাচ্ছিল লঞ্চটি। মাত্র ১৫ মিনিটের মাথায় সোয়া ৬টায় শীতলক্ষ্যা নদীতে অপর একটি জাহাজের ধাক্কায় ডুবে যায় লঞ্চটি। এসময় লঞ্চের দোতলা ও ছাদে থাকা যাত্রীদের একটি অংশ সাতরে তীরে উঠতে পারলেও নিচতলার যাত্রীরা পানিতে তলিয়ে যায়।
পরে বিআইডব্লিউটিএ’র উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় সোমবার বেলা সাড়ে ১২টা ২০ মিনিটে ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধার করে। এতে ৩৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *