মোদীর কুশপুত্তলিকা পোড়াল

সংবাদটি শেয়ার করুন:

স্টাফ রির্পোটার:
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ‘খুনি’ আখ্যায়িত করে তাঁর কুশপুত্তলিকা পুড়িয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্র ফেডারেশন। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) বেলা সাড়ে ৩টার দিকে চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কুশপুত্তলিকা পোড়ানো হয়।
সংগঠনের সভাপতি ইলিয়াস জামানের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন সহসভাপতি তাকবীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ফারহানা মানিক মুনা, সহসাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন জাহিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান, গোদনাইল আঞ্চলিক কমিটির আহ্বায়ক রকিবুল হাসান ইফতি, গাবতলী শাখার আহ্বায়ক ইউশা ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক সায়মা প্রমুখ।
ছাত্র ফেডারেশনের নেতারা বলেন, ‘১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশকে সহযোগিতা করেছে ভারত। এই কারণে সকল মানুষ ভারতের প্রতি কৃতজ্ঞ। কিন্তু তার মানে এই নয় যে, প্রতিদিন সীমান্তগুলোতে লাশ ফেলার অধিকার ভারত পেয়ে গেছে। এই মৃত্যুর মধ্য দিয়ে ভারত আমাদের বন্ধু নাকি শত্রু সে বিষয়টি সামনে আসে। সেই ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী একজন সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাবাজ। তাকে ভারতের জনগণ কসাই মোদী হিসেবে চেনে। তাঁর হাতে রক্ত লেগে আছে। এইরকম একজন মানুষকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এটা বাংলাদেশের মানুষের জন্য লজ্জাজনক।’
তারা আরও বলেন, ‘তিস্তা, ফারাক্কা, ফেলানি, আবরারের লাশের উপর দাঁড়িয়ে এই নরেন্দ্র মোদী বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে না। এই কুশপুত্তলিকা পোড়ানোর মধ্য দিয়ে আমরা প্রতিবাদ জানাচ্ছি। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে দাঙ্গাবাজ, কসাই খ্যাত নরেন্দ্র মোদীকে আমন্ত্রণ জানাতে পারি না।’


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *