উপজেলা পর্যায়ে অবহিতকরণ আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন প্রোগ্রাম বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

সংবাদটি শেয়ার করুন:

নিজস্ব প্রতিনিধি:
উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো,প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন প্রোগ্রাম বিষয়ক উপজেলা পর্যায়ে অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয় দুঃস্থ পূর্ণবাসণ গ্রাম উন্নয়ন সংস্থা(ডিপিগাস)আয়োজনে। গত সোমবার(২২ মার্চ)নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা প্রশাসন, উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো ও ঢাকা আহছানিয়া মিশনের সহযোগিতায় সকাল ১১টায় উপজেলা সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয় কর্মশালাটি।
কর্মশালাটি জেলা উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো সহকারী পরিচালক এম এম সাইদুর রহমান সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা বারিক। প্রধান অতিথির বক্তব্যে নাহিদা বারিক বলেন, আপনেরা যে কাজটি হাতে নিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলার ১৭টি স্কুলে যে শিক্ষার্থীরা ঝরে পড়ছে তাদের জন্য।এ যে পদক্ষেপে যাদের বাবা মা গার্মেন্টস কাজ করে তাদের সেক্ষেত্রে এই উদ্যোগ গুরুত্বপূর্ণ কাজ করবে।তবে সেক্ষেত্রে আপনাদের কাজ গুলো এমন যেনো না হয় ৩ বছরের পজেক্টের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থাকে যেনো।আমি ব্যক্তিগতভাবে সরকারের পাশাপাশি আপনাদের উদ্যোগকে আমরা সাধুবাদ জানাচ্ছি।তবে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে এমন যেনো না হয় কারো তদবির শুনে এমন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যাতে না হয় যার কাছে শিশুদের শিক্ষা সঠিকভাবে না হয়। সভাপতির বক্তব্যবে এম এম সাইদুর রহমান বলেন, স্কুল থেকে ঝরে পড়া ৮-১৪ বছরের বয়সী শিশুদের জন্য এই সংগঠন কাজ করে।প্রতিবছর প্রায় ১০ লাখ শিশু স্কুল থেকে ঝরে পড়ে।আমরা এই ঝরে পরা ৮-১৪ বয়সের শিশুদের জন্য আমরা কাজ করবো।কারন আমাদের ইসলাম ধর্মে, আইনে এবং সংবিধানে বলা হয়েছে সবার জন্য শিক্ষা ব্যবস্থা করতে।আর আমাদের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন দেশের সকল শিশুদের জন্য শিক্ষা ব্যবস্থা উন্মূক্ত করার। তিনি আরো বলেন, আমার জীবনে আমি কোন কাজে ফেল করি নাই।আমার কোন কাজে ফেল নামক শব্দটি নেই।তাই আপনাদের এই মহান কাজে আমি ফেল করবো না।আমাদের দেশের উন্নয়নের জন্য ইউরোপ আমেরিকা থেকে এসে উন্নয়ন করে দিবে না বরং আমাদের উন্নয়ন আমাদের নিজেদের করতে হবে।আজকে আমার বেতন লাখ টাকা এটা হয়েছে আমাদের বাংলাদেশ স্বাধীন হিবার কারনে।আর এর মূল ভূমিকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদানের জন্য এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অক্লান্ত পরিশ্রমে দেশের উন্নয়নে। কর্মশালায় ৮-১৪ বছরের শিশু যারা স্কুলের শিক্ষা থেকে ঝরে পড়েছে তাদের কিভাবে এই উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো,প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন আওতায় এনে শিক্ষা দেওয়া যায় এবং এই কর্মসূচির মূল উদ্দেশ্য,কর্ম এলাকা,সময়কাল,অভীষ্ট জনগোষ্ঠী, বাস্তবায়ন কৌশল,এই প্রোগ্রাম বাস্তবায়নে ওঝঅ এর প্রস্তুতিমুলক কাজ,বিদ্যালয় বহির্ভূত শিশু জরিপ,জরিপের উদ্দেশ্য,জরিপ এলাকা,সর্বস্থরে সমন্বয় সাধন ও সামাজিক উদ্ধুতকরণ,জরিপ পদ্ধতি, ক্যাম্পেইন কমিটির কার্যক্রম, শিখনকেন্দ্র স্থাপন,শিখনকেন্দ্রের জন্য ঘর/বাড়ি নির্বাচনের মানদন্ড,শিক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন,শিক্ষার্থীদের চূড়ান্ত তালিকা ও ভর্তি,শিক্ষক নিয়োগ,শ্রেনী পরিচালনা সময়কাল সহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আগত বিভিন্ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকগনদের সাথে আলোচনা করেন ঢাকা আহছানিয়া মিশনের জেলা প্রোগ্রাম ম্যানেজার অশোক কুমার ঘোষ। কর্মশালায় আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা আহছানিয়া মিশনের ডিপুটি ম্যানেজার মোহাম্মদ ইসমাঈল হোসেন,দুঃস্থ পূর্ণবাসণ গ্রাম উন্নয়ন সংস্থা(ডিপিগাস)চেয়ারম্যান মোঃমনিরুল ইসলাম,উপজেলা প্রোগ্রাম ম্যানেজার খোরশেদ আলম, উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসার গুলশান আরা, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সামিরা নার্গিস,সাহিদা সুলতানা,উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম আবু তালেব,উপজেলা সমবায় অফিসার মোহাম্মদ নাজমুদ হুদা,কর্মশালা প্রোগ্রাম সুপারভাইজার মোঃইব্রাহিম খলিল,মোহাম্মদ নাহিদ,মোঃফারুক মিয়া,মোঃপারভেজ,মোঃশরীফ হোসাইন সহ সদর উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকগন।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *