1. admin@dailysadhinbangladesh.com : admin :
  2. n.ganj.jasim@gmail.com : নিজস্ব প্রতিবেদক: : নিজস্ব প্রতিবেদক:
রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০৮:২১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
মুনিয়া আত্মহত্যা : প্ররোচনা মামলাটি বেআইনি? নাসিক প্যানেল মেয়র আলহাজ্ব মতিকে ফুলেল শুভেচ্ছা বন্দরে বাল্য বিয়ের পর স্বামীর নির্যাতনে মেধামী ছাত্রীর আত্নহত্যা একজন দক্ষ ও জনবান্ধব প্রশাসনিক কর্মকর্তা শুক্লা সরকার শিশু গৃহপরিচারিকাকে ধর্ষণ মালিকের ছেলে গ্রেপ্তার বন্দরে মোটর সাইকেল চুরি, যুবক কারাগারে বন্দরে ইয়াবাসহ দুই যুবক গ্রেপ্তার দৈনিক সোজা সাপ্টা, ইয়াদ, রুদ্রবার্তাসহ কয়েকটি পত্রিকায় প্রকাশিত ওয়ারেন্ট ইস্যুর সংবাদে আশরাফ উদ্দিনের ব্যাখ্যা সিরাজ মন্ডলের সহযোগীর বাগানে গাঁজার গাছ ## সাংবাদিকদের সাথে কথা বন্ধ: সিরাজ মন্ডল সিদ্ধিরগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে অবৈধ কারখানা থেকে ভেজাল খাদ্য ও পন্যসামগ্রী জব্দ ॥ দুইজন আটক

সাবেক পুলিশ সুপার ও বঙ্গবন্ধু সড়কের হকার নিয়ে কিছু কথা

প্রশাসন
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ১১ মার্চ, ২০২১
  • ৩২ বার পঠিত
সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদক
নারায়ণগঞ্জ জেলার সাবেক পুলিশ সুপার মো. হারুন অর রশিদের প্রস্থানের পর থেকেই নগরবাসীর উপর ঝেপে বসেছে বঙ্গবন্ধু সড়কের হকাররা। এক সময় জেলা পুলিশের শীর্ষ ওই কর্মকর্তার আইনি পদক্ষেপের কারণে কথিত রাজনীতিবিদ, হকার ও হকারদের ইন্দনদাতারা ভয়ে-আতংকে পালিয়ে বেড়িয়েছে। তবে সিংহামের বদলী হওয়ার পরপরই প্রেক্ষপট পরিবর্তন হতে শুরু করে নারায়ণগঞ্জের। বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ জেলার শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহেদুল আলম বঙ্গবন্ধু সড়কের হকারদের উচ্ছেদে অগ্রণি ভূমিকা পালন করেছেন। তবে সিংহামের মতো সমীহ আদায়ের ক্ষেত্রে বরাবরই ব্যার্থ হয়েছেন বলে স্থানীয়রা অভিমত ব্যক্ত করেছেন। তাদের মতে, সিংহাম (হারুন অর রশিদ) নারায়ণগঞ্জ পুলিশকে একটি জনবান্ধব পুলিশ যাকে প্রকৃত জনগণের বন্ধুর মত আত্মপ্রকাশ ঘটিয়েছিলেন। সেই সময় ওই কর্মকর্তা ভূক্তভোগীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ক্ষমতবান ব্যক্তি যারা সর্বদাই আইনের উর্ধে থেকেই নারায়ণগঞ্জে তাদের অনৈকিতক কার্যক্রম পরিচালনা করতে তাদের আইনে আওতায় নিয়ে এসেছিলেন। তার ওই সকল কার্যক্রম দেখে অপরাধী, সন্ত্রাসী, মাদক চক্র, অপরাজনীতিবিদসহ নগরীর কথিত হকার নেতারাও অনেকটা আত্মগোপনে ছিলেন এবং তারা দীর্ঘ অপেক্ষায় ছিলেণে পুলিশের ওই শীর্ষ কর্মকর্তার প্রস্থানের বিষয়ে।
জানা গেছে, একটি মহল দীর্ঘদিন ধরেই বঙ্গবন্ধু সড়ক ও নারায়ণগঞ্জ নগরীর ভিবিন্ন সড়কের অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে আসছিল। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনসহ নগরীর সচেতন নাগরীকরা বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ করলে ওই চক্রটি হকারদের মাঝে একটি ভ্রান্ত ধারণার প্রচলণ ঘটায়। এর পাশাপাশি স্থানীয় প্রভাবশালী রাজনীতিবিদসহ কিছু ব্যক্তি বিশেষ মানবতার জয় গান গেয়ে মেয়র ও পুলিশের বিরুদ্ধে হকারদের রাজপথে নামার উস্কানি দেয়। যেই উস্কানিতেই ২০১৮ সালে একদল সন্ত্রাসী ও কতিপয় হকাররা মেয়র আইভীকে হত্যার চেষ্টা করে। ওই সময় নগরীর বেশ কয়েকজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী আগ্নেয়াস্ত্র উচিয়ে পরিস্থিতি আরো ঘোলাটে করার চেষ্টা করেছিল। এইদিকে ২০১৮ সালে মেয়র উপর হামলার নীল নকশা সৃজনকারীরা পুনরায় প্রকট হয়েছে বলে অনেকেই মনে করছেন। তাদের মতে এবারও ওই চক্রটি সাধরণ হকারদের ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে ২০১৮ সালের চেয়েও বড় আরেকটি ভয়াবহতা পুনরাবৃত্তির চেষ্টা করছে। গত মঙ্গলবার (৯ মার্চ) বিকালে একদল হকার বঙ্গবন্ধু সড়কের অবৈধ স্থাপনা বসিয়ে ব্যবসা করার দাবীতে বিক্ষোভ কর্মসূচীর আয়োজন করে। সেই সময় হকাররা দেড় ঘন্টা নারায়ণগঞ্জ নগরীর প্রধান সড়কটি অবরুদ্ধ করে অগ্নি সংযোগ ও পুলিশকে লক্ষ করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। হকারদের এমন কান্ডে ওই দিন পুলিশসহ বেশ কয়েকজন সাংবাদিক ও সাধারণ মানুষ আহত হয়। ওই দিনের ঘটনায় ইতিমধ্যে পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছে। সেই মামলায় একজন কথিত হকার নেতাসহ আরো দুইজনকে সাত দিনের পুলিশ রিমন্ডের আবেদন জানিয়ে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ, যার রিমান্ড শানানী আগাম ১৪ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে বলে আদালত সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা গনমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছে। হকারদের এমন ঝেঁকে বসার বিষয়ে নগর জুড়ে এখন আলোচনা ও সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয়দের মতে, সাধারণ হকারদের অতিমাত্রায় রাজনীতিকরণ করা হচ্ছে। এতে করে কিছু ব্যক্তি হিরো রূপে আভিরভাব হলেও অধিকাংশ হকারদের পড়তে হচ্ছে বিরম্বনায়। জানা গেছে, একদল ব্যক্তি বিশেষ তাদের মিছিল মিটিংএ হকারদের সম্পৃক্ত করার জন্য বহুদিন ধরেই সাধারণ হকারদের ব্যবহা করছে। বঙ্গবন্ধু সড়কের চাষাঢ়া থেকে শুরু করে ২নং রেল গেইট ও ১নং রেল গেইট এলাকা থেকে মীর জুমলা সড়ক পর্যন্ত দৈনিক লক্ষ লক্ষ টাকা উত্তোলন করছে একপক্ষ। সেই পক্ষটি দীর্ঘদিন ধরেই হকারদের ব্যবার করে ক্ষমতাসীন দলের মিছিল মিটিং লোকবল পাঠিয়ে একটি মেরুর আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত পায়। ওই পক্ষটির সাথে দীর্ঘদিন ধরেই মেয়র আইভীর সাথে পারিবারিক ও রাজনৈতিক একটি দ্বন্দ চলে আসছিল। সেই দ্বন্দটিকেই বর্তমানে হাকরদের দিয়ে পরিচালনা করা হচ্ছে। বর্তমানে হকাররা অতিমাত্রায় হিংসাত্মক মনোভাব পোষণ করছে। তারা পুলিশ ও মেয়রকে উদ্দেশ্যে করে হুমকি ও আল্টিমেটাম দিয়ে আসছে। সর্বপরি হকারদের এমন কান্ডে নগরবাসী মনে করছে কয়েকজন ব্যক্তি বিশেষের স্বার্থ রক্ষায় সাধারণ হকারদের ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031  

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © ২০২১ দৈনিক স্বাধীন বাংলাদেশ
Theme Customized BY Theme Park BD