সিদ্ধিরগঞ্জে মারামারি ও অফিস নিয়ে মিথ্যাচারে

সংবাদটি শেয়ার করুন:

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি:
পাওনা টাকা নিয়ে হলো নিজেদের মধ্যে মারামারি। কিন্তু পত্রিকায় সংবাদ হলো মাদকের টাকা ভাগাভাগি নিয়ে সংঘর্ষ। মারামারির খবর পেয়ে ছুটে এসে যুবলীগ কর্মী মিলন সকলকে দিলো মিলিয়ে। কিন্তু পত্রিকায় সংবাদ হলো মিলনের সাথে হয়েছে সংঘর্ষ। এই ধরনের ভুল তথ্য দিয়ে প্রকাশিত নাসিক ১নং ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা টাইগার ফারুকের অফিসের সামনে মারামারি সংবাদে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে যুবলীগ কর্মী মিলন।
গতকাল এক প্রতিক্রিয়ায় মিলন জানায়, ২৫হাজার টাকা পায়। ২০ হাজার টাকা দিয়ে দেয়া হয়েছে। ৫হাজার টাকা নিয়ে দুই জনের মধ্যে মারামারি হয়েছে। মারামারির সময় আমি ও যুবলীগ নেতা ফারুক হোসেন ছিলাম না। কিন্তু মারামারি হয়েছে জানতে পেরে আমি সবার আগে এসে উভয়ের মধ্যে মিলিয়ে দেই। আমার অনেক পরে ফারুক ভাই এসেছে। অথচ পত্রিকায় আমাদের নামে মিথ্যে অপপ্রচার চালানো হয়েছে। কারা মারামারি করেছে, কারা মাদক বিক্রি করেছে এটা আমাদের বিষয় নয়। এটা দেখবে পুলিশ। অথচ আমরা জড়িত না থেকেও আমাদের নামে মিথ্যাচার। আমরা জানি কার থেকে টাকা গ্রহন করে আজ আমাদের নামে মিথ্যে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। আমাদের অফিস থাকায় অনেক অপরাধি, মাদক ব্যবসায়ীর ঘুম হারাম হয়ে গেছে। আমাদের তীব্র প্রতিবাদের কারনে অনেকে অন্যায় কাজ করতে পারছেনা। আসন্ন নির্বাচনে টাকা ছিটানো, ভোট চুরি, মাদক ব্যবসায়ী ও সেবিদের মহড়া ঠেকাতে আমাদের অফিসকে প্রতিদ্বন্ধি মনে করছে একটি চক্র। তাই আমাদের অফিস বন্ধ করতেই চলছে মিথ্যে অপপ্রচার। কিন্তু আমরাও দেখতে চাই এর শেষ কোথায়? আমরা যদি খারাপ হই তাহলে এর বিচার মহান আল্লাহ করবে। কিন্তু ভালো কাজ করলে অবশ্যই আল্লাহ আমাদের সহায় হবেন। আমি আমাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।


সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *