সিন্ডিকেট করে জমজমাট মাদক ব্যবসা,এলাকাবাসী অতিষ্ট

হৃদয় মাহমুদ জনি:নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ থানার ভোলাব ইউনিয়নের চারিতালুক গ্রামে সিন্ডিকেট করে জমজমাট মাদক ব্যবসা করে যাচ্ছে কিছু অসাধু মাদক ব্যবসায়ী। স্থানীয় ক্ষমতার দাপটে ও নিত্যনতুন কলাকৌশলে মাদক ব্যবসা করে কয়েক বছরের মধ্যেই বিপুল টাকা কামিয়ে নিয়েছে সিন্ডিকেটটি।পাইকারী ও খুচরা মাদক বিক্রি করে রীতিমত টাকার পাহাড় হয়ে গেছে সিন্ডিকেটটি।

ভোলাব ইউনিয়নের চারিতালুক গ্রামের স্থানীয় বাসিন্দা মোঃ গিয়াস উদ্দিন চৌধুরীর দুই ছেলে মোঃ শাহীন চৌধুরী(28) ও মোঃ নাঈম চৌধুরী(26) এই মদক ব্যবসার সিন্ডিকেটের প্রধান হোতা হিসেবে এলাকায় পরিচিত। তাদের নামে রূপগঞ্জ থানায় 6/7 টি মামলা রয়েছে। মাদক ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য প্রধান সহকারী হিসেবে গোলজার চৌধুরী ও সেকেন্ড ইন কমান্ড হিসেবে কবির চৌধুরী সিন্ডিকেটের সাথে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। তাছাড়া প্রতিনিয়ত নতুন নতুন লোক সংযোজন করে তাদের দিয়ে মাদক হোম ডেলিভারিও করে সিন্ডিকেটটি। টেকনাফ থেকে পাইকারী ইয়াবা পরিবহনের মাধ্যমে আনিয়ে তা ছড়িয়ে দিচ্ছে পুরো ভোলাব ইউনিয়নে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, ইয়াবা, বিয়ার ও গাঁজাসহ সকল ধরণের মাদক  পাওয়া যায় এই সিন্ডিকেটের কাছে।ভোলাব ইউনিয়নের আতলাপুর বাজারের দক্ষিণ পূর্ব পার্শ্বে সিন্ডিকেটের লোকজন সারাদিন প্রকাশ্যে এই মাদক ব্যবসা পরিচালনা করে। তাদের এই মাক ব্যবসার কারণে এলাকায় অবাধে পাওয়া যাচ্ছে মাদক। ফলে এলাকার স্থানীয় যুবক, কিশোরেরা মাদকাসক্ত হয়ে পড়ছে। এলকাবাসী বহুবার তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলেও কোন সুফল আসেনি। এমনকি রূপগঞ্জ থানায় অভিযোগ করেও এলাকাবাসী রেহাই পায়নি।

তাছাড়া এই সিন্ডিকেটের লোকজন এলাকার কৃষি জমি থেকে বেকু দিয়ে অবৈধভাবে মাটি কেটে ইট ভাটায় সরবরাহ করে। তাই দিন দিন কৃষি জমির সংখ্যা হ্রাস পাচ্ছে।

তারৈল গ্রামের বাসিন্দা মোঃ কাওছার জানান, বিগত 3/4  বছর ধরে প্রকাশে এই সিন্ডিকেটটি মাদক ব্যবসা পরিচালনা করছে। তার প্রভাবে এলাকার যুবক, কিশোর সহ শিশুরা মাদকের কড়াল গ্রাসে জড়িয়ে পড়ছে।

***পরবর্তী অনুসন্ধানে চোখ রাখুন***

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *